174655

মাওলানা আরশাদ মাদানীর নামে টুইটারে ভুয়া একাউন্ট, বিদ্রোহ ছড়ানোর চেষ্টা

নুরুল্লাহ্ আশরাফী
দেওবন্দ থেকে

জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের একাংশের সভাপতি এবং দারুল উলুম দেওবন্দের সিনিয়র মুহাদ্দিস মাওলানা  সায়্যিদ আরশাদ মাদানীর নামে টুইটারে ভুয়া একাউন্ট খুলে বিদ্রোহ ছড়ানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ফেক টুইটার একাউন্ট থেকে ‘বাবরি মসজিদের জায়গায় রামমন্দিরই হবে’ হ্যাশট্যাগ দিয়ে ‘বন্ধুত্ব এতো বেশি রাখো যে, মাঝে ধর্ম না আসে, কখনো তোমরা তাকে মন্দির পর্যন্ত পৌঁছে দাও, তবে তারাই একদিন তোমাকে মসজিদ পর্যন্ত পৌঁছে দিবে’ ইত্যাদি বিদ্বেষমূলক পোস্ট দিয়ে সাধারণ মুসলমানদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

এই সংবাদ মাওলানা আরশাদ মাদানী’র প্রেস সচিব মাওলানা ফজলুর রহমান কাসেমীর দৃষ্টিগোচর হলে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা সবাইই অবগত আছেন যে, জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ বাবরী মসজিদ ইস্যুতে নিজেদের অবস্থানে অটল আছে।

আর গত ৬ই নভেম্বর দিল্লিতে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের সভাপতি মাওলানা আরশাদ মাদানী ভারতের সাধারণ মুসলমানদের পক্ষে সংবাদ সম্মেলন করেও একথা বলেছেন,মুসলিম জাতি শান্তিপ্রিয় জাতি।মুসলমান কখনো দাঙ্গা, ফেতনা-ফ্যাসাদ চায় না। আর দেশের মধ্যে কেউ ফেতনা ছড়াতে আসলে তাকে ছেড়েও দিবে না।

মাওলানা আরশাদ মাদানী আরো বলেন, একমাত্র সরকার চাইলেই ভারতে আবার দাঙ্গা লাগাতে পারে আর তারা চাইলেই দেশকে শান্ত রাখতে পারে! কেননা, অতীতে কারা বারবার দাঙ্গা লাগিয়ে দেশকে অশান্ত করে রেখেছিলো তা দেশের জনগনের খুব ভালোভাবেই জানা আছে।

সবশেষে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের সভাপতি মাওলানা আরশাদ মাদানীর প্রেস সচিব মাওলানা ফজলুর রহমান কাসেমী বলেন, যারা হজরতের নামে ভুয়া একাউন্ট তৈরি করে সাধারণ মুসলমানের বিভ্রান্ত করছে, আমরা অচিরেই তাদের ব্যাপারে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করব ইনশাআল্লাহ্।

আরএম/

ad

পাঠকের মতামত

Comments are closed.