177557

ইরানের ক্ষেপণাস্ত্রের বিরুদ্ধে একজোট হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র-ইউরোপ

আওয়ার ইসলাম: ইউরোপ ইরানের সঙ্গে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতার প্রতি সমর্থন জানালেও ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানি এখন ক্ষেপণাস্ত্র ইস্যুতে ইরানের বিরুদ্ধে হুমকি দিচ্ছে।

জানা যায়, ইউরোপের প্রভাবশালী এই তিনটি দেশ আমেরিকার সঙ্গে জোট বেধে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে।

আমেরিকার সঙ্গে সুর মিলিয়ে ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানি বুধবার জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্থেনিও গুতেরেসের কাছে চিঠি দেয়া হয়।

ওই চিঠিতে দাবি করা হয়, ইরানের কিছু কিছু ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি এই সংস্থার নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাবের লঙ্ঘন।

ওই চিঠিতে তারা জাতিসংঘের পরবর্তী প্রতিবেদনে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি যে এই সংস্থার ২২৩১ নম্বর প্রস্তাবের লঙ্ঘন সে বিষয়টি উল্লেখ করার জন্য গুতেরেসের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

ইউরোপের এ তিনটি দেশ এর আগেও এ ধরনের আবদার জানিয়েছিল। কিন্তু ইরানের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের সঙ্গে নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাবের কোনো সম্পর্ক না থাকায় এ ইস্যুতে তারা ইরানের বিরুদ্ধে কোনো প্রস্তাব পাশ করতে পারেনি।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফ বলেছেন, যারা পরমাণু সমঝোতার বিভিন্ন ধারার সঙ্গে পরিচিতি তারা জানেন ইরানের কৃত্রিম উপগ্রহবাহী রকেট উৎক্ষেপ ব্যবস্থা এবং ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা জাতিসংঘের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাবের লঙ্ঘন নয়।

এই প্রস্তাবে কেবলমাত্র পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো নিষিদ্ধ করা হয়েছে উল্লেখ করে জারিফ আরও বলেন, ইরানের পরমাণু অস্ত্রের কোনো কর্মসূচি নেই।

জারিফের এ বক্তব্য আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা বা আইএইএ’র প্রতিবেদনেও বহুবার উল্লেখ করা হয়েছে।

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, আমেরিকা ও তার ইউরোপীয় মিত্ররা সবসময়ই প্রযুক্তির ওপর একক আধিপত্য বজায় রাখার চেষ্টা করে আসছে এবং তারা দাবি করছে ইরানে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাবের লঙ্ঘন। অথচ ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির লক্ষ্য কেবলই আত্মরক্ষা।

-এটি

ad

পাঠকের মতামত

Comments are closed.