193868

শেখ সুলায়মান বিন আব্দুল আযীযের ইন্তেকালে ইসলামী আন্দোলনের নেতৃবৃন্দের শোক

আওয়ার ইসলাম: সৌদি আরবের সবচেয়ে বড় ইসলামিক ব্যাংক ‘আল রাজী’র মালিক এবং বড় খেজুর বাগান ‘রাজী বাগান’র মালিক শেখ সুলায়মান বিন আবদুল আযীযের ইন্তেকালে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম ও নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম গভীর শোক প্রকাশ এবং মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেন।

শুক্রবার এক শোক বার্তায় চরমোনাইয়ের পীর বলেন, শেখ সুলায়মান বিন আবদুল আযীয ছিলেন রাসুল সা.- এর উৎকৃষ্ট আদর্শ ও মুসলিম উম্মাহর জন্য সদা বিগলিত হৃদয়, চির নিবেদিত মানুষ। নিরাহঙ্কার, নির্লোভ ও বিনয়ী। মহান এ শায়খের ইন্তেকালে বিশ্বের মুসলমানরা একজন নিবেদিতপ্রাণ ও একনিষ্ট দীনের খাদেমকে হারালো। রব্বুল আলামিন কীর্তিমান এ শায়খকে উত্তম পুরস্কারে ভূষিত করুন, আমীন।

তিনি বলেন, শেখ সুলায়মান বিন আব্দুল আজিজ বিশ্বের অন্যতম একজন ধনাঢ্য ব্যক্তি এবং ফোর্বস ম্যাগাজিন এর মতে পৃথিবী শ্রেষ্ঠ ২০ জন মানবিক সহায়তা প্রদানকারীর মধ্যে একজন ছিলেন। আল-রাজী ব্যাংকের ২০ শতাংশ অর্থ সৌদি আরবের দরিদ্র শিশুদের জন্য ব্যয় করা হয়, যা আসলে প্রশংসার দাবি রাখে। তার খেজুরের বাগান আল রাজীর সকল অর্থ ও খেজুর আল্লাহর রাস্তায় ওয়াকফকৃত। এই বাগানের কোন খেজুরই বিক্রয় করা হয় না। যার ফলে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ওয়াকফ সম্পত্তি হিসেবেও এ বাগানকে বিবেচনা করা হয়ে থাকে। গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ডে এ বাগানটি যুক্ত হয়েছে।

‘পুরো রমজান মাসে মক্কা ও মদিনার সব রোজাদারদের খেজুর এই বাগান থেকেই সরবরাহ করা হয়। এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও এ বাগানের খেজুর পাঠানো হয়ে থাকে। মুসলিম উম্মাহর চির দরদী ও নিঃস্বার্থ দানশীল এই মানুষটির ভুলভ্রান্তি মাফ করে তাকে জান্নাতবাসী করুন এবং তার পরিবারবর্গ ও ভক্তদের ধৈর্য্য ধারণের তৌফিক দিন, আমীন।’

এছাড়াও পৃথক পৃথক বিবৃতিতে শোক প্রকাশ করেছেন দলের মহাসচিব প্রিন্সিপাল মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল্লামা নূরুল হুদা ফয়েজী ও সেক্রেটারী জেনারেল মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, জাতীয় শিক্ষক ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, সেক্রেটারী মাওলানা এবিএম জাকারিয়া, উত্তর সভাপতি প্রিন্সিপাল শেখ ফজলে বারী মাসউদ ও সেক্রেটারী মাওলানা আরিফুল ইসলাম।

-এএ

ad