143768

‘জীব মাত্রই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করবে’

শাইখুল হাদিস মুফতি মনসূরুল হক
শাইখুল হাদিস ও প্রধান মুফতি, জামিয়া রাহমানিয়া মুহাম্মদপুর, ঢাকা

মহান আল্লাহ তাআলা পবিত্র কুরআনে ইরশাদ করেছেন :

كُلُّ نَفْسٍ ذَائِقَةُ الْمَوْتِ ۗ وَإِنَّمَا تُوَفَّوْنَ أُجُورَكُمْ يَوْمَ الْقِيَامَةِ ۖ فَمَن زُحْزِحَ عَنِ النَّارِ وَأُدْخِلَ الْجَنَّةَ فَقَدْ فَازَ ۗ وَمَا الْحَيَاةُ الدُّنْيَا إِلَّا مَتَاعُ الْغُرُورِ (185)

অর্থ: জীব মাত্রই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করবে। আর তােমরা কিয়ামতের দিন পরিপূর্ণ বদলা প্রাপ্ত হবে। অতঃপর যাকে দোযখ থেকে মুক্তি দেয়া হবে এবং জান্নাতে প্রবেশ করানাে হবে, সে হবে সাফল্যবান।বস্তুত পার্থিব জীবন ধোঁকা ছাড়া আর কিছুই নয়। (সূরা আলে ইমরান-১৮৫)

এ আয়াতের  তাফসীর: আখিরাতের চিন্তা মূলত যাবতীয় দুঃখ বেদনার প্রতিকার ও সমস্ত সংশয়ের উত্তর। উক্ত আয়াতে এই বাস্তবতাকেই স্পষ্ট করে তুলে ধরা হয়েছে। তাই এ দুনিয়াবী ক্ষণস্থায়ী জীবনে যদি কখনাে কোথাও কাফিররা বিজয়ী হয়ে যায় এবং পরিপূর্ণ আরাম আয়েশ লাভ করে আর তারই বিপরীতে মুসলমানগণ যদি বিপদাপদ, জটিলতা ও পার্থিব উপকরণে সংকীর্ণতার সম্মুখীন হয়, তাহলে তা তেমন বিস্ময়কর কিছু নয়।

তাতে দুঃখিত হওয়ারও কিছু নেই। কারণ, এ বাস্তবতা সম্পর্কে কোন ধর্ম, কোন মতাবলম্বী, কিংবা কোন দার্শনিকই অস্বীকার করতে পারে না যে, পার্থিব দুঃখ-কষ্ট বা আরাম আয়েশ উভয়টিই কয়েক দিনের জন্য মাত্র।

উপরন্তু এর দ্বারা মুমিনের গুনাহ মাফ হয়ে যায়, দরজা বুলন্দ হয়। কোন জানদার বা প্রাণীই মৃত্যুর হাত থেকে পরিত্রাণ লাভ করতে পারে না। তাছাড়া মুমিনের পার্থিব দুঃখ-কষ্ট কিংবা সুখ স্বাচ্ছন্দ্য বেশীর ভাগ ক্ষেত্রে পৃথিবীতেই আবর্তিত হয়ে শেষ হয়ে যায়।

আর পৃথিবীতে যদি শেষ না ও হয়, তবে মৃত্যুর সাথে সাথে সম্পূর্ণ নিঃশেষ হয়ে যায়। কাজেই কয়েকদিনের সুখ-দুঃখ নিয়ে চিন্তামগ্ন হয়ে থাকা কোন বুদ্ধিমানের কাজ নয়, বরং মৃত্যুর পরবর্তী স্থায়ী জীবনের চিন্তা করাই উচিত যে, সেখানে কি হবে এবং তার জন্য ঈমান ও আমলের প্রস্তুতি কিভাবে নিতে হবে এবং কতটুকু নিতে পারলাম।

এজন্যই এ আয়াতে বর্ণনা করা হয়েছে যে, প্রত্যেক প্রাণীই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করবে। আর আখিরাতে নিজের কৃতকর্মের পুরস্কার বা শাস্তি প্রাপ্ত হবে। সুতরাং বুদ্ধিমানের পক্ষে কেবল এ বিষয়েই চিন্তা করা উচিত এবং সেই লােকই সত্যিকার কৃতকার্য, যে দোযখ থেকে মুক্তি লাভ করবে এবং জান্নাতের স্থায়ী আরাম আয়েশ ও সুখ শান্তির অধিকারী হবে।

পক্ষান্তরে কাফিরদের চিরস্থায়ী ঠিকানা হবে জাহান্নাম। কাজেই তারা যদি দুনিয়ার সামান্য কয়েকদিনের পার্থিব সুখ স্বাচ্ছন্দ্যের কারণে গর্বিত হয়ে উঠে, তবে সেটা একান্ত ধোঁকা ছাড়া কিছুই নয়।

সে জন্যই আয়াতে বলা হয়েছে – দুনিয়ার জীবন তাে ধোঁকার উপকরণ। তার কারণ এই যে, সাধারণতঃ এখানকার ভােগ বিলাসই হবে আখিরাতের কঠিন যন্ত্রণার কারণ। পক্ষান্তরে,দুনিয়াতে দীনের জন্য দুঃখ-কষ্ট হবে আখিরাতের সঞ্চয়। (মাআরিফুল কুরআন, ২/২৫৫)।

হাদীস শরীফে ইরশাদ হয়েছে, জ্ঞানী ও বুদ্ধিমান ঐ ব্যক্তি, যে নিজের নফস ও খাহেশকে নিজের আয়ত্বে আনতে সক্ষম হয় এবং মৃত্যুর পরবর্তী জীবনের জন্য প্রস্তুতি নিয়ে রাখে। (তিরমিযী শরীফহাদীস নং ২৪৫৯, ইবনে মাজাহ শরীফ- হাদীস নং ৪২৬০, মিশকাত শরীফ, ২/৪৫১)

আরএম/

ad

পাঠকের মতামত

One response to “আল্লাহর সঙ্গে একান্তে আলাপন; ইতিকাফই মহান সুযোগ”

  1. Cecilstomi says:

    JWallet – платежный сервис нового поколения https://jwallet.cc/?ref=4900 Самые низкие %% за переводы. Банковские переводы в России, Украине и др. странах. WebMoney. Обменный сервис. Заработок

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *