145037

মাওলানা ফরীদ মাসউদের অবস্থান জানতে হাইআতুল উলইয়ার কমিটি

হামিম আরিফ: তাবলিগের বিতর্কিত মুরব্বি মাওলানা সাদ কান্ধলভীর পক্ষে স্পষ্টভাবে অবস্থান করায় মুফতি ইজহারুল ইসলামের মাদরাসা চট্টগ্রাম লালখান বাজারের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাইআতুল উলয়া।

এদিকে বেফাকুদ্দিনিয়ার চেয়ারম্যান মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসউদসহ দারুল উলুম দেওবন্দের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া সবার ব্যাপারে অবস্থান খতিয়ে দেখবে সংস্থাটি। এ ব্যাপারে ৮ সদস্যের একটি কমিটিও করা হয়েছে।

রোববার (১৭ মার্চ) জামিয়া ইমদাদিয়া ফরিদাবাদে হাইআতুল উলইয়ার বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন হাইআতুল উলইয়ার চেয়ারম্যান আল্লামা শাহ আহমদ শফী।

আগামী ৮ এপ্রিল শুরু হওয়া দাওরায়ে হাদিসের কেন্দ্রীয় পরীক্ষা, সফটওয়ার নির্মাণ, অফিস স্থানান্তরসহ কয়েকটি সুপারিশ ও প্রস্তাবনা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়।

এসবের পাশাপাশি সাম্প্রতিক সময়ে চলা তাবলিগ ইস্যুতে বিতর্কিত মুরব্বি মাওলানা সাদের পক্ষে অবস্থান নেয়া মাদরাসাগুলোর ব্যাপারেও দীর্ঘ আলোচনা হয়।

ইতোপূর্বে মাওলানা সাদের ব্যাপারে নিজের অবস্থান পরিস্কার করে প্রচার করায় চট্টগ্রামের মুফতি ইজহারুল ইসলামের লালখান বাজারের মাদরাসার তাকমিল পরীক্ষাদের পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেয়।

বৈঠকে উপস্থিত একাধিক সদস্য আওয়ার ইসলামকে জানান, দারুল উলুম দেওবন্দের অবস্থানের বিরোধী যেসব উলামা ও মাদরাসা রয়েছেন তাদের সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়গুলো সুরাহার চেষ্টা করা হবে। সমাধানে না এলে একই ধরনের সিদ্দান্ত নেবে হাইআতুল উলয়া।

তবে লালখান বাজারের মাদরাসা বা অভিযুক্ত অন্যান্য মাদরাসাগুলো যদি নিজেদের অবস্থান পরিস্কার করে ফিরে আসেন তাদের স্বাগত জানাবে হাইআতুল উলইয়ার নেতৃবৃন্দ।

জানা যায়, মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসউদকে তার অবস্থান বিষয়ে বুঝানো ও স্পষ্ট করতে ৮ সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে। কমিটিতে আল্লাম আশরাফ আলী, আল্লামা আনোয়ার শাহ, মুফতি রুহুল আমিন, মাওলানা আবদুল কুদ্দুস, মাওলানা আরশাদ রাহমানী রয়েছেন।

আল হাইআতুল উলয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশের চেয়ারম্যান আল্লামা শাহ আহমদ শফীর সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সংস্থার কো চেয়ারম্যান আল্লামা আশরাফ আলী, সদস্য আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ, মুফতি রুহুল আমিন, মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাস, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, মাওলানা আরশাদ রাহমানী, মাওলানা মাহফুজুল হক, মাওলানা মুহাম্মাদ নূরুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুল হামীদ, মাওলানা সাজিদুর রহমান, মুফতী ফয়জুল্লাহ, মাওলানা মুফতী জসীমুদ্দীন, মাওলানা আনাস মাদানী, মাওলানা আব্দুর রহমান হাফেজ্জী, মাওলানা মুফতী নূরুল আমীন, উবায়দুর রহমান মাহবুব, মাওলানা নূরুল হুদা ফয়েজী, মাওলানা বাহাউদ্দিন যাকারিয়্যা,  মাওলানা শামসুল হক, মাওলানা জিয়াউদ্দীন, মাওলানা আব্দুল বছীর, মাওলানা মাহমুদুল আলম, মাওলানা মোহাম্মাদ আলী, মাওলানা ইয়াহইয়া মাহমূদ, আবু তাহের নদভী প্রমুখ

আরআর

ad

পাঠকের মতামত

One response to “যেভাবে গ্রেফতার হলেন ওসি মোয়াজ্জেম”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *