150671

কণ্ঠভোটে প্রত্যাখ্যাত হল সরকারি চাকরিতে প্রবেশে বয়স বাড়ানোর প্রস্তাব

আওয়ার ইসলাম: সরকারি চাকরিতে প্রবেশে বয়সসীমা ৩০ বছর থেকে বাড়িয়ে ৩৫ বছর করার বিষয়ে একটি বেসরকারি সিদ্ধান্ত প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে জাতীয় সংসদ।

গতকাল বৃহস্পতিবার একাদশ সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশনে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য রেজাউল করিম ওই সিদ্ধান্ত প্রস্তাবটি এনেছিলেন। কণ্ঠভোটে তা প্রত্যাখ্যাত হয়।

স্বতন্ত্র সাংসদ রেজাউল করিম বলেন, বিশ্বের ১৯২টি দেশের মধ্যে ১৫৫টি দেশে চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৫৫ বছর কোথাও কোথাও ৫৯ বছর পর্যন্ত। দেশে এখন শিক্ষিত বেকার ২৮ লাখের বেশি। শিক্ষিত বেকার পরিবারের জন্য বোঝা। শিক্ষার্থীরা সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের জন্য আন্দোলন করেছিল।

তখন তাদের রাজাকার, শিবির, জঙ্গি বানানোর চেষ্টা করা হয়েছিল। এখন চাকরিতে প্রবেশের বয়স বাড়ানোর জন্য আন্দোলন করছে। শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ বছর করা উচিত হবে

এ প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন সংসদে বলেন, চাকরিতে প্রবেশে বয়সের বিষয়ে সরকারের নীতিগত সিদ্ধান্ত রয়েছে। বর্তমানে সরকারি চাকরিতে প্রবেশ ও অবসরের যে বয়সসীমা, সবদিক বিবেচনায় সেটাকে সরকার যৌক্তিক বলে মনে করছে। স্বাধীনতার পর প্রেক্ষাপট বিবেচনায় চাকরিতে প্রবেশে বয়সসীমা ২৫ থেকে ২৭ ও পরবর্তীতে ৩০ করা হয়।

এখন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সেশনজট নেই। ২৩ বছর বয়সে শিক্ষার্থীরা স্নাতকোত্তর ডিগ্রি পান। এরপর চাকরির প্রস্তুতির জন্য ছয়-সাত বছর সময় পাচ্ছেন। তাছাড়া চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করা হলে পেনশন সংক্রান্ত জটিলতা তৈরি হবে।

এরপর প্রস্তাবটি কণ্ঠভোটে দেয়া হয় এবং কণ্ঠভোটে তা প্রত্যাখ্যাত হয়।

ad

পাঠকের মতামত

Comments are closed.