160908

বাংলাদেশ সরকারের প্রতি জমিয়তের ৭ প্রস্তাবনা

আওয়ার ইসলাম: পাঠ্যপুস্তক থেকে বিবর্তনবাদ বাদ দিয়ে শিক্ষার সর্বস্তরে ইসলামি শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করাসহ বাংলাদেশ সরকারের প্রতি মোট সাতটি প্রস্তাবনা পেশ করেছে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ।

আজ (১১ জুলাই) দলের যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা মনজুরুল ইসলাম আফেন্দীর সভাপতিত্বে জাতীয় প্রেসক্লাব অডিটরিয়ামে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ ঢাকা মহানগরীর কাউন্সিল অধিবেশনে এ সাতটি প্রস্তাবনা পেশ করেন দলের নেতাকর্মীরা।

এসময় জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব আল্লামা নূর হোছাইন কাসেমী বলেছেন, ডারউইনের বিবর্তনবাদ প্রকৃত অর্থে একটি কুফরী মতবাদ। বানর থেকে মানুষের সৃষ্টি হয়েছে, মানুষের কোন সৃষ্টিকর্তা নেই, এ জাতীয় মতবাদ বিশ্বাস করলে কারো ঈমান থাকবে না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের মত একটি মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ট দেশে নবম – দশম শ্রেণী থেকে মাস্টার্স পর্যন্ত পাঠ্যপুস্তকে এ রকম কুফরী মতবাদের জায়গা কিভাবে হলো তা খুবই দুশ্চিন্তার বিষয়। মূলতঃ পাঠ্যপুস্তকে ডারউইনের এই কুফরী মতবাদকে অর্ন্তভূক্ত করে মুসলিম শিক্ষার্থীদেরকে নাস্তিক্যবাদের দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে।

160894

সাতটি প্রস্তাবনা হলো-

১৷ ভারতের সম্প্রতি জয় শ্রীরাম স্লোগান দিয়ে মুসলমানদের উপরে যে বর্বরোচিত হামলা চলছে আজকের এই কাউন্সিল সম্মেলন তার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে এবং বাংলাদেশ সরকারকে ভারতীয় এই উগ্রতার জোড় প্রতিবাদ জানানোর আহ্বান জানাচ্ছে ৷

২৷ সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম দেশ হিসেবে বাংলাদেশের স্কুল কলেজের পাঠ্যপুস্তকে বিবর্তনবাদ অন্তর্ভুক্ত করার পেছনে যাদের হাত রয়েছে তাদেরকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে এবং বিবর্তনবাদের মত কুফরী মতবাদকে পাঠ্যপুস্তক থেকে প্রত্যাহার করতে হবে৷

৩৷ সাম্প্রতিক সময়ে দেশব্যাপী নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের যে ভয়াবহ চিত্র সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হচ্ছে তাতে দেশবাসী চরম উদ্বিগ্ন ও উৎকণ্ঠিত৷ অবিলম্বে সরকারকে এই উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা দূর করে নারী সমাজের পূর্ণাঙ্গ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে৷

৪৷ বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদেরকে নাগরিকত্ব প্রদান করে পূর্ণ নিরাপত্তার সাথে স্বদেশে ফিরে যাওয়ার ক্ষেত্র তৈরি করতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে সরকারের প্রতি আজকের কাউন্সিল জোর দাবি জানাচ্ছে৷

৫৷ মাদকের বিষাক্ত ছোবল থেকে দেশের যুবসমাজকে রক্ষার জন্য সরকারকে আরো বেশি কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে৷

৬৷ দেশের সর্বত্রই আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে, জনগণের জান-মাল ইজ্জত-আবরুর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অনতিবিলম্বে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি ঘটাতে হবে৷

৭৷ শিক্ষার সর্বস্তরে ইসলামি শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করতে হবে৷

আগামী ৩ বছর মেয়াদের জন্য মাওলানা মনজুরুল ইসলাম আফেন্দীকে সভাপতি ও মাওলানা মতিউর রহমান গাজীপুরীকে সাধারণ সম্পাদক, মাওলানা মুফতী নূর মুহাম্মদ কাসেমীকে সাংগঠনিক সম্পাদক, মুফতী ইমরানুল বারী সিরাজীকে প্রচার সম্পাদক, মাওলানা সাইফুদ্দীন ইউসুফ ফাহিমকে যুব বিষয়ক সম্পাদক করে ১১২ সদস্য বিশিষ্ট ঢাকা মহানগর জমিয়তের পূর্নাঙ্গ এ কমিটির ঘোষণাকরা হয়।

মহানগর জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মতিউর রহমান গাজিপুরী, মুফতী বশীরুল হাসান খাদিমানী, মাওলানা নূর মুহাম্মদ কাসেমী ও মাওলানা মাহবুবুল আলম এর যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠিত কাউন্সিল অধিবেশনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, দলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মাওলানা আবদুর রব ইউসুফী, মাওলানা জুনায়েদ আল হাবীব, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা বাহাউদ্দীন যাকারিয়া, মুফতী মনির হোসাইন কাসেমী, সহ-সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ছানাউল্লাহ মাহমূদী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা নাজমুল হাসান, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আফজল হোসাইন রাহমানী, মুফতী নাসির উদ্দীন খান, প্রচার সম্পাদক মাওলানা জযনুল আবেদীন, অফিস সম্পাদক মাওলানা আবদুর গফফার ছয়ঘরী, যুব জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ইসহাক কামাল ও ছাত্র জমিয়ত সভাপতি মাওলানা এখলাসুর রহমান রিয়াদসহ মহানগরীর দায়িত্বশীল ও বিভিন্ন থানা থেকে আগত কাউন্সিলরগণ।

আরএম/

ad

পাঠকের মতামত

Comments are closed.