175528

বাবরি মসজিদ রায়: জমিয়তে উলামায়ে হিন্দও রিভিউ পিটিশন দায়ের করবে

আওয়ার ইসলাম: ভারতের জমিয়তে উলামায়ে হিন্দএর ওয়ার্কিং কমিটি দ্বারা গঠিত পাঁচ প্যানেল আইনজীবী ও বিশেষজ্ঞদের সাথে পরামর্শের পর বাবরি মসজিদ-মালিকানা মামলায় সুপ্রিম কোর্টের রায়ের রিভিউ পিটিশন দায়ের করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আজ রোববার জম্মু উলামায়ে কেরামের নেতৃত্বে এ আবেদনটি জমা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের প্রধান মাওলানা সৈয়দ আরশাদ মাদানী, মাওলানা হাবিবুর রহমান কাসিমি, মাওলানা সৈয়দ আসজাদ মাদানী, মাওলানা ফজলুর  রহমান কাসিমি এবং অ্যাডভোকেট ইজাজ মকবুল এ পিটিশন দায়ের করবেন।

তারা এ বিষয়ে জানান, বাবরি মসজিদ রাম জন্মভূমি কি না, এটা সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে তবে এটি আইনত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নয়, কারণ এখানে একটি সংশোধনীর বিকল্প সুযোগ রয়েছে।

এ জন্য আমরা এখন রিভিউ পিটিশন দায়ের করবো। যেনো এক হাজার পৃষ্ঠার বেশি নথিপত্রের প্রমাণাদী আবারো বিবেচনা করে মুসলমানদের দেয়া প্রমাণাদীর সঙ্গে মিলিয়ে দেখে কোর্ট।

মাওলানা আরশাদ মাদানী বলেন, সুপ্রিম কোর্টের সাম্প্রতিক রায় বাবরি মসজিদটি রাম মন্দির ভেঙে নির্মিত হয়েছে, মুসলমানদের উপর আনা এ অভিযোগ থেকে মুক্ত হয়েছি।

প্রত্নতাত্ত্বিক প্রতিবেদনে স্পষ্ট করে দিয়েছিল, এখানে কোনো মন্দির ভেঙ্গে মসজিদ নির্মাণ করা হয়নি। সুপ্রিম কোর্ট স্বীকার করেছে এবং হাইকোর্টও বলেছে, ১৯৯৯ সালে এ মূর্তিটি অবৈধভাবে মসজিদের বাইরের উঠোনে স্থাপন করা হয়েছিল।

তিনি আরো বলেন, মুসলিম ছাড়াও অমুসলিম বিশেষজ্ঞরা সুপ্রিম কোর্টের এ সিদ্ধান্তের সাথে একমত নন ।২0১২ সালে সুপ্রিম কোর্ট থেকে অবসর গ্রহণকারী বিচারপতি গাঙ্গুলি বলেন, যদি আজ মসজিদের জায়গায় মন্দির থাকতো। আর মুসলিমরা দাবি করতো মন্দির মসজিদ ভেঙ্গে তৈরি করা হয়েছে। তাহলে কোর্ট কি ফায়সালা দিত? কিন্তু আজ ভারত আদালত মসজিদ ছিলো, এ জায়গায় কোনো মন্দির থাকারও প্রমাণ নেই।

তাহলে কেনো সুপ্রিম কোর্টের কাছ থেকে আমরা এমন রায় পেলাম। এ জাতীয় প্রশ্ন আদালতে পুনরায় জমা দেওয়ার জন্য অবশ্যই আদালতে একটি রিভিউ পিটিশন দাখিল করতে হবে।

মিল্লাত টাইমস অবলম্বনে আবদুল্লাহ তামিম

-এটি

ad

পাঠকের মতামত

Comments are closed.