175553

মুসলিম ছাড়া অন্য সবার নাগরিকত্ব দিতে ফের বিল আনছে বিজেপি

আওয়ার ইসলাম: ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার নাগরিকত্ব আইনে পরিবর্তন আনার জন্য আবারো একটি বিল পেশ করতে চলেছে সে দেশের পার্লামেন্টে।

আগামী কাল সোমবার শুরু হওয়া শীতকালীন অধিবেশনের কর্মসূচিতেই বিতর্কিত এই বিলের উল্লেখ করা হয়েছে।

বিলটি আগেও একবার পেশ হয়েছিল, কিন্তু আসামসহ উত্তরপূর্বাঞ্চল জুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভ হওয়ায় তখন সেটি পাশ করানো যায়নি। ইতিমধ্যেই লোকসভার মেয়াদও শেষ হয়ে যায়। তাই নতুন করে বিল পেশ করতে হচ্ছে সরকারকে।

এই বিল পাশ হলে নাগরিকত্ব আইনে পরিবর্তন এনে বাংলাদেশ, পাকিস্তান আর আফগানিস্তানের হিন্দু-বৌদ্ধ, শিখ, খ্রিস্টান, জৈন আর পার্শি মানুষ, যারা কথিত ধর্মীয় নির্যাতনের কারণে ২০১৪ সাল পর্যন্ত ভারতে চলে এসেছেন, তারা নাগরিকত্বের আবেদন করতে পারবেন।

প্রথম দফায় এ বিলটি পাসের উদ্যোগ নেয়া হলে এর বিরুদ্ধে আসাম ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলজুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছিল। প্রতিবাদে নেমেছিল অসমিয়া জাতীয়তাবাদী সংগঠনগুলো। রাজ্যেগুলোর মুখ্যমন্ত্রীরাও প্রতিবাদে শামিল হয়েছিলেন।

এবারও বিল পেশের খবর বেরোতেই আসামের নানা জায়গায় বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। যেসব সংগঠন ইতিমধ্যে রাজপথে নেমেছে, তার মধ্যে অন্যতম কৃষক মুক্তি সংগ্রাম সমিতি।

সংগঠনটির কেন্দ্রীয় প্রচার সচিব রাতুল হোসেইন বলেন, ‘ভারতীয় সংবিধানের মূলমন্ত্র হচ্ছে ধর্মনিরপেক্ষতা। কিন্তু এ বিলে সেটাকেই ধ্বংস করে হিন্দু রাষ্ট্রের দিকে নিয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টা হচ্ছে। এদেশের নাগরিকত্ব পেতে ধর্ম কোনো ভিত্তি হতে পারে না, আর এই বিলে সেটাই করা হচ্ছে।’

রাতুল হোসেইন বলেন, ‘আসামের নাগরিক তালিকায় (এনআরসি) যে ১৯ লাখ মানুষের নাম বাদ পড়েছে, তাদের মধ্যে বেছে বেছে মুসলমান ছাড়া অন্যদের নাগরিকত্ব দিতেই এ বিল আনা হচ্ছে।’

-এটি

ad

পাঠকের মতামত

Comments are closed.