178428

লেখকদের আগমনে ভিন্নমাত্রা ময়মনসিংহ ইসলামী বইমেলায়

আল আমিন বাপ্পি
ময়মনসিংহ থেকে

পাঠক আনাগোনা, বইয়ের বিক্রি, লেখকদের মুখরতা, সব মিলিয়েই জমে উঠেছে ময়মনসিংহ ইসলামী বইমেলা। শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) মেলায় এসেছিলেন বাংলাদেশের ইসলামি ভাবধারার লেখকদের অন্যতম বৃহৎ সংগঠন বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরামের একঝাক তরুণ লেখিয়েরা।

পাঠকদের সঙ্গে আড্ডায়  মনোকমুগ্ধকর মেতে ওঠেন তারা। লেখকদের অটোগ্রাফ নিতে ও তাদের সঙ্গে সেলফি তুলতে এসময় মেলা প্রাঙ্গণে ভিড় জমায় লেখকদের ভক্তরা।

কবি ওয়ালিউল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয় লেখকদের মনোমুগ্ধকর আড্ডা। শুরুতেই বক্তব্য রাখেন রাহনুমা প্রকাশনীর সত্বাধিকারী মো. মাহমুদুল ইসলাম, শিকড় সাহিত্য মাহফিলের সদস্য সিরাত সাহিত্য চর্চা কেন্দ্রের পরিচালক মুফতি আমির ইবনে আহমদ।

‘এমন প্রাণবন্ত একটি বইমেলার আয়োজন করার জন্য, সৃজনশীল ইসলামী পুস্তক প্রকাশক ও ব্যবসায়ী সমিতিকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। এ ধরণের আয়োজন আরো হোক।’ – মুফতি আমির ইবনে আহমদ এমনটাই প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠান শুরুতে বাংলাদেশ লেখক ফোরামের সভাপতি জহির উদ্দিন বাবরের হাতে পুস্তক প্রকাশনী ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে ক্রেস্ট এবং অতিথিদের মাঝে তুলে দেওয়া হয় মূল্যবান বই।

জহির উদ্দিন বাবর বলেন, বাংলাদেশে ইসলামি বইমেলার সংখ্যা খুব কম এবং ইসলামী বই সম্পর্কে সাধারণ মানুষের ধারণাও কম, তাই পুস্তক প্রকাশক ব্যবসায়ীদের এ ধরণের মেলা প্রত্যেক জেলা এবং উপজেলা পর্যায়ে করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ লেখক ফোরামকে সম্মাননা দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ জানান তিনি।

আড্ডায় আরো আলোচনা করেন, লেখক ফোরামের সাবেক সভাপতি মুফতি এনায়েতুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মুনীরুল ইসলাম, আওয়ার ইসলাম টোয়েন্টিফোর  ডটকমের সম্পাদক হুমায়ুন আইয়ুব,  সাবেক সভাপতি গাজী মুহাম্মদ সানাউল্লাহ, সহ-সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান খসরু, তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এহসানুল হক, অর্থ সম্পাদক এমদাদুল হক তাসনিম, নির্বাহী সদস্য হাবীবুল্লাহ সিরাজ, নির্বাহী সদস্য মিজানুর রহমান জামিল, নির্বাহী সদস্য মঈনুদ্দীন খান তানভীর, ঔপন্যাসিক মো.ফজলুল হক।

বক্তারা বলেন, বাংলা সাহিত্য সঙ্গে ইসলামি সাহিত্য শব্দটা যোগ হওয়ার পিছনে যার বেশি অবদান তিনি হলেন আল্লামা মুহিউদ্দিন খাঁন রহ.। ইসলামি সাহিত্যের পিছনে যার অবদান ভোলার নয়। আল্লামা মুহিউদ্দিন খাঁন রহ. ইসলামি সাহিত্যের সেই কলমটি আমাদের হাতে দিয়ে গেছেন। আর এই কলমটি আমাদেরকে আরে শক্ত করে ধরতে হবে, যাতে করে বাতিল আমাদের সম্মুখে না আসতে পারে।

আড্ডায় আরো উপস্থিত ছিলেন, জামিয়া ফয়জুর রহমান রহ.-এর মুহাদ্দিস মুফতি ওমর ফারুক, মাহাদুদ দাওয়া আল ইসলামী বাংলাদেশের পরিচালক মাহমুদুল হক সিদ্দিক প্রমুখ।

অনুষ্ঠান শেষে ডা. মো. আবু সাইদ সরকারের অবৈধ ভালোবাসা বইটির মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার থেকে ময়মনসিংহের মুসলিম ইনস্টিটিউটে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে সৃজনশীল ইসলামী পুস্তক প্রকাশক ও ব্যবসায়ী সমিতির আয়োজনে কতকিছু ডট কমের ব্যবস্থাপনায় শুরু হয়েছে ৫ দিনব্যাপী ইসলামী বইমেলা। মেলায় প্রথম দিন থেকেই বই প্রেমীদের সমাগম ছিলো চোখে পড়ার মতো, ছিলো ছোট ছোট বইপোকাদের ভীড়। ৫ দিনব্যাপী ইসলামী বইমেলাটি আগামী ১৬ ডিসেম্বর সোমবার পর্যন্ত চলবে।

আরএম/

 

ad

পাঠকের মতামত

Comments are closed.