179381

২০১৯ সালে যাদের হারালাম আমরা

আব্দুল্লাহ আফফান
সহ-সম্পাদক

মহাকালের অমোঘ নিয়মে বিদায়ের ঘণ্টা বাজছে ২০১৯ সালের। দরজায় কড়া নাড়ছে নতুন বছর। নতুন বছরকে স্বাগত জানানোর পাশাপাশি কেউ কেউ নতুন বছরের পরিকল্পনাও সাজাতে বসে গেছেন। আনন্দ-বেদনা, আশা-নিরাশার ভেলায় চড়ে সবাই ২০১৯ সালকে বিদায় জানানো প্রস্তুতির মাঝে মনে উঁকি দিচ্ছে নতুন ২০২০ কে নিয়ে নানা স্বপ্ন।

অনেক স্বপ্ন, অর্জনের পাশাপাশি ২০১৯ আমাদের দিয়েছে কিছু হারানোর ক্ষত। এ বছর বেশ কয়েকজন আলেম পাড়ি জমিয়েছেন না ফেরার দেশে। যাদের মাধ্যমে মানুষ পেয়েছে সত্য সুন্দরের শিক্ষা। আলোকিত হয়েছে আত্মভোলা মানুষ। আসুন জেনে নেই তাদের সম্পর্কে।

আল্লামা শরীফ শাহজালাল (৮ জানুয়ারি)

উজানী মাদরাসার শাইখুল হাদীস ও সৈয়দপুর কামিল মাদরাসার সাবেক শাইখুল হাদীস এবং কুতুবুল আলম কারী ইব্রাহীম রহ. এর নাতি আল্লামা শরীফ শাহজালাল ইন্তেকাল করেছেন। ৮ জানুয়ারি মঙ্গলবার দুপুরে তিনি নিজ বাড়িতেই ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর।

আল্লামা শরীফ শাহজালাল রহ. হাফিজুল হাদিস হিসেবে খ্যাত ছিলেন। তিনি চাদপুরের জামেয়া ইসলামিয়া ইবরাহীমিয়া উজানী মাদরাসায় দীর্ঘ দিন ধরে শাইখুল হাদিস হিসেবে খেদমত করেছেন।

সৌদির প্রখ্যাত আলেম আহমদ আল-আমরি (২০ জানুয়ারী, ২০১৯)

সৌদি আরবের প্রখ্যাত আলেম আহমদ আল-আমরি মস্তিষ্কের তৎপরতা পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গিয়ে ইন্তেকাল করেন। ২০ জানুয়ারী রোববার জেদ্দার একটি হাসপাতালে তিনি মারা যান।

আহমদ আল-আমরি মদিনা ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ডিন। তাকে বিষ প্রয়োগ করে হত্যা করা হয় বলে দাবি করে প্রিজনার অব কনসেন্সাস নামের সৌদি একটি মানবাধিকার সংগঠন।

তরুণ আলেম শাহাদাত ফয়সাল ( ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯)

তরুণ আলেম, লেখক ও গবেষক মাওলানা শাহাদাত হো‌সেন খান ফয়সাল চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। তিনি ফুসফুসের সমস্যায় আক্রান্ত ছিলেন।

মাওলানা শাহাদাত ফয়সাল সমকালীন প্রকাশনীর সম্পাদক এবং মাদরাসাতুন নুর-এর প্রিন্সিপাল ছিলেন। এছাড়াও তিনি ছিলেন একজন উপস্থাপক ও বক্তা।

টিভি রিয়েলিটি শো আলোকিত জ্ঞানীর ২০১৫ সালের চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন তিনি। কুরআন গবেষণার জন্য তিনি গড়ে তুলেছিলেন কুরআন রিসার্চ ফাউন্ডেশন নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

চুরিহাট্টার আগুনে ২ আলেমের মৃত্যু ( ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯)

পুরান ঢাকার চুরিহাট্টার ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে মাওলানা ওমর ফারুক আগুনে দগ্ধ হয়ে ইন্তেকাল করেন। তিনি ঢাকার বড়কাটারা মাদরাসার শিক্ষক ছিলেন। প্রায় ১০ বছর যাবত বড়কাটারা মাদরাসায় শিক্ষকতা করছেন তিনি।

চুরিহাট্টার আগুনে দগ্ধ হয়ে হাফেজ মাওলানা কাওসার আহমদ মারা যান। চুরিহাট্টা এলাকায় মদিনা ফার্মেসীর স্বত্ত্বাধীকারী তিনি। এ আলেমের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার হোমানা থানায়।

তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস অনুষদের মেধাবী ছাত্র ছিলেন। এককালে তিনি মুফতি আমিনি রহ. এর প্রতিষ্ঠিত ছাত্র খেলাফতের কেন্দ্রীয় নেতা ছিলেন।

মাওলানা খলীলুর রহমান হাজি সাহেব হুজুর (২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯)

সিলেটের খ্যাতনামা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জামিয়া কাসিমুল উলুম দরগাহে হজরত শাহজালাল-এর প্রবীণ মুহাদ্দিস মাওলানা খলীলুর রহমান (হাজি সাহেব হুজুর) ইন্তেকাল করেছেন।

২৪ ফেব্রুয়ারি বুধবার বিকেল ৩টা ৫০ মিনিটে সিলেটের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেন। হাজি সাহেব হুজুর দরগাহ মাদরাসায় হাদিসের খেদমতের পাশাপাশি হজরত শাহ পরান রহ. মাজার মসজিদের খতিবও ছিলেন।

সিলেটের ইসলামিক ফিকহ ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক ও মরহুমের অন্যতম ছাত্র মুফতি জিয়াউর রহমান বলেন, আমাদের হাজী সাহেব হুজুর মাওলানা শায়খ খলিলুর রহমান এই যুগের একজন মিসালি উস্তায ও দরদি অভিভাবক ছিলেন। তালিবুল ইলমদের নিজের ছেলের মতো করে দেখা তার উস্তায-জীবনের অন্যতম বৈশিষ্ট্য৷

একজন সহজ-সরল, আবিদ-যাহিদ, খোশ মেযাজ, অতুলনীয় আদর্শ ও চারিত্রিক মাধুর্যের অধিকারী ব্যক্তিত্ব তিনি৷ জামেয়া দরগাহ’র সাবেক-বর্তমান এমন একজন তালিবুল ইলম পাওয়া যাবে না, যিনি হুজুরের চারিত্রিক মাধুর্য ও আচরণে মুগ্ধ নয়৷

মুফতি আবুল কালাম যাকারিয়া ( ১১ মার্চ, ২০১৯) 

হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ইন্তেকাল করেন দেশের অন্যতম ফিকহ বিশারদ আলেম ও সিলেটের জামিয়া দরগাহে হজরত শাহজালালের মোহতামিম মুফতি আবুল কালাম যাকারিয়া।

মুফতি যাকারিয়া ছিলেন ইসলামি আইন শাস্ত্রে সমকালীন সিলেটের তুলনাহীন ব্যক্তিত্ব। যে-কেউ যেকোনো সময় তার কাছ থেকে যেকোনো ধরনের মাসআলা, সরাসরি হোক কিংবা মোবাইল ফোন, জেনে নিতে পারত।

দরগাহ মাদরাসার মুহতামিমের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি বেশ কিছু বছর ধরে দরগাহ মসজিদের ইমাম ও খতিবও ছিলেন তিনি। ছিলেন দাওয়াতুল হক বাংলাদেশের সিলেট জেলার আমির।

মাওলানা জামীল আহমাদ (৩১ মার্চ)

দারুল উলুম দেওবন্দের সিনিয়র মুহাদ্দিস মাওলানা জামীল আহমাদ সিকরোড়ী ইন্তেকাল করেছেন৷ ৩১ মার্চ রোববার বিকেল সোয়া ৫টায় দিল্লি জিটিবি হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেন৷

তিনি ছিলেন দারুল উলুম দেওবন্দের প্রখ্যাত একজন মুহাদ্দিস৷ সাবেক শাইখুল হাদীস দারুল উলুম ওয়াক্বফ৷ তিনি ছিলেন বহু গ্রন্থ প্রণেতা৷

চট্টগ্রামের বিশিষ্ট আলেম ড. জসীম উদ্দীন নদভী ( ৮ এপ্রিল, ২০১৯)

বিশিষ্ট আরবি সাহিত্যিক ও চট্টগ্রামের জামিয়া দারুল মা’আরিফের সহকারী পরিচালক ড. জসীম উদ্দীন নদভী ওমরা করতে গিয়ে মক্কায় ইন্তেকাল করেন। তিনি জামিয়া জামিয়া দারুল মা’আরিফের বর্তমান পরিচালক আল্লামা সুলতান যওক নদভীর মেয়ের জামাতা ছিলেন।

আরবি সাহিত্যের শিক্ষক ও আন্তর্জাতিক ইসলামি সাহিত্য সংস্থা থেকে প্রকাশিত মাসিক আল-হকের সহ-সম্পাদক ছিলেন ড. জসীম উদ্দীন নদভী। এছাড়াও তিনি জাতীয় ওলামা-মশায়েখ ও আইম্মা পরিষদ চট্টগ্রামের সভাপতি ছিলেন।

সিলেটের বরেণ্য আলেম শফিকুল হক আমকুনী (২০ এপ্রিল, ২০১৯ )

জামিয়া মাহমুদিয়া ইসলামিয়া সোবহানীঘাট সিলেটের প্রতিষ্ঠাতা মুহতামিম মাওলানা শফিকুল হক আমকুনী ২০ এপ্রিল ২০১৯ ইন্তেকাল করেছেন।মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর। তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে ৫ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

মাওলানা আমকুনী নিজ গ্রাম সুন্দিশাইল মসজিদ থেকে শিক্ষাজীবনের সূচনা করেন। এরপর জামিয়া হুসাইনিয়া রানাপিং, জামিয়া দেউলগ্রাম, জামিয়া ঢাকা দক্ষিণ মাদ্রাসায় প্রাথমিক, উচ্চ মাধ্যমিক পড়াশোনা শেষ করেন। পরবর্তীতে তিনি মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসা ও পাকিস্তানের জামিয়া বিন্নুরী নিউ টাউন থেকে উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করেন।

বরেণ্য এ আলেম সিলেট নগরীর সোবাহানীঘাট জামিয়া মাহমুদিয়া মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা মুহতামিম, সোবহানীঘাট মসজিদের মুতাওয়াল্লী ও খতিব হিসেবে আজীবন দায়িত্ব পালন করে গেছেন।

জামেয়া রেঙ্গার শায়খুল হাদিস আল্লামা শিহাব উদ্দীন ( ১ জুন, ২০১৯)

সিলেটের প্রাচীনতম দীনি বিদ্যাপীঠ জামিয়া তাওয়াক্কুলিয়া রেঙ্গার শায়খুল হাদিস মাওলানা শিহাবুদ্দীন ইন্তেকাল করেন।

শায়খুল হাদিস আল্লামা শিহাবউদ্দীন সিলেটের শীর্ষস্থানীয় অন্যতম হাদিস বিশারদ ছিলেন। জামেয়া রেঙ্গায় একাধারে দীর্ঘ ৫০ বছরেরও অধিক কাল তিনি শায়খুল হাদিস হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন।

এ ছাড়াও তিনি দীর্ঘদিন ধরে সিলেটের আঞ্চলিক শিক্ষাবোর্ড আযাদ দ্বীনী এদারার নাজিমে ইমতেহান হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন। তাসাউফের লাইনে ছিলেন খলিফায়ে মাদানি হজরত শায়খে কৌড়িয়া রহ.-এর উচ্চ পর্যায়ের খলিফা। হজরত শায়খে রেঙ্গা ও কৌড়িয়ার স্নেহধন্য ও অত্যন্ত ঘনিষ্ঠজনও ছিলেন তিনি।

ভারতের বিখ্যাত আলেম মাওলানা ইফতেখারুল হাসান কান্ধলভী ( ২ জুন, ২০১৯)

ভারতের বিখ্যাত আলেমে মাওলানা মুফতি ইফতেখারুল হাসান কান্ধলভী ইন্তেকাল করেছেন৷ তিনি ছিলেন ভারতের অন্যতম একজন আলেমে দীন৷ ইলমে হাদিসের একজন নিবেদিত খাদেম৷ হযরত মাওলানা আব্দুল কাদের রায়পুরী রহ.-এর অন্যতম একজন খলিফা ছিলেন৷

সিলেটের বরেণ্য আলেম মাওলানা ফখরুদ্দীন (২০ জুন, ২০১৯)

সিলেটের বরেণ্য আলেমে সদর উপজেলার জামেয়া আরাবিয়া ইসলামিয়া দনুকান্দি মাদরাসার শায়খুল হাদিস মাওলানা ফখরুদ্দীন সাদিক সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হার্ট অ্যাটাক করে মৃত্যুবরণ করেন।

মাওলানা ফখরুদ্দীন সাদিক জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বিয়ানীবাজার উপজেলার সহ সভাপতি দায়িত্বে ছিলেন। সিলেট বিভাগের ঐতিহ্যবাহী ইসলামী বিদ্যাপীট জামেয়া মাদানিয়া আঙ্গুরা মোহাম্মদপুর থেকে প্রথম দাওরায়ে হাদিস কৃতিত্বের সাথে পাস করেন।

তিনি ঢাকা উত্তর রানাপিং আরাবিয়া হোসাইনিয়া জামেয়া কাসিমূল উলুম মেওয়া মাদরাসাসহ সিলেটের বিভিন্ন মাদরাসার শায়খুল হাদিস ও মুহাদ্দিস হিসেবে শিক্ষকতা করেছেন। মাওলানা ফখরুদ্দীন সাদিকে বাড়ি বিয়ানীবাজার উপজেলার ১১নং লাউতা ইউনিয়নের বাহাদুরপু টিকরপাড়া গ্রামে।

মাওলানা আবুল ফাত্তাহ (৩ জুলাই)

বুয়েট সেন্ট্রাল মসজিদের প্রাক্তন ইমাম ও খতিব মাওলানা আবুল ফাত্তাহ (৬২) ইন্তেকাল করেছেন। ৩ জুলাই বুধবার রাত ৮টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেন।

মাওলানা আবুল ফাত্তাহ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বড় হুজুর সিরাজুল ইসলাম রহমাতুল্লাহি আলাইহি’র জামাতা। তিনি দীর্ঘ দিন বুয়েট কেন্দ্রীয় মসজিদে ইমাম ও খতিবের দায়িত্ব পালন করেছেন।

মাওলানা রহমতুল্লাহ কাউসার নিজামী রহ.

আল জামিয়া আল ইসলামিয়া পটিয়ার মুহাদ্দিস মাওলানা রহমতুল্লাহ কাউসার নিজামী ইন্তেকাল করেছেন। ১৩ আগষ্ট মঙ্গলবার সকাল ৭ টা ১০ মিনিটের দিকে শেষ নিঃস্বাস ত্যাগ করেন।

তিনি ছিলেন জামিয়ার কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীর পরিচালক ও বাংলাদেশ তাহফীজুল কুরআন সংস্থার সাধারণ সম্পাদক,  ইসলামি ইতিহাসবিদ। মাওলানা রহমতুল্লাহ কাউসার নিজামী রহ. বিভিন্ন বিষয়ে বহু গ্রন্থ রচনা করেছেন।

মাওলানা আব্দুস সালাম (১৬ সেপ্টেম্বর)

সিলেটের ছড়ারপার মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা আব্দুস সালাম ইন্তেকাল করেছেন। ১৬ সেপ্টেম্বর সোমবার সকালে তিনি ইন্ত‌েকাল করেন।

ত‌ি‌নি ওসমানীনগর উপজে‌লার উছমানপুর ইউনিয়নের রাউৎখাই গ্রাম‌ে জন্ম গ্রহন কর‌েন। গহরপুর জামেয়ায় দাওরায়‌ে হাদীস পা‌শ কর‌ে সি‌লেট দারুস সালাম মাদরাসায় অনে‌কদিন শিক্ষকতা করে‌ন।

পর‌ে খাদি‌ম নগর কল্লগ্রাম‌ে ন‌িজের বাড়ি‌র পাশ‌ে জাম‌ে‌য়া সাওতুল হ‌ে‌রা নাম‌ে একট‌ি মাদরাসা প্রত‌ি‌ষ্ঠা কর‌েন। পাশাপাশ‌ি স‌ি‌লেট ছড়ার পার মাদরাসার মুহতামিম হ‌ি‌সাব‌ে দায়‌িত্ব পালন করে‌ছেন। তিন‌ি তাবল‌িগ জামাতে‌র একজন মুরব্ব‌ি ও দ্বীন‌ের একনি‌ষ্ট খাদে‌ম ছিলে‌ন।

মাওলানা জামাল উদ্দিন (১৭ সেপ্টেম্বর)

দারুল উলুম দেওবন্দের প্রবীণ মুহাদ্দিস ও তাফসিরে জালালাইনের সাড়াজাগানো শরাহ্ ‘জামালাইন’ এর মুসান্নিফ মাওলানা জামাল উদ্দিন ইন্তেকাল করেছেন। ১৭ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার দুপুর ২ টা ৫০ মিনিটে নিজ বাড়ি মিরাঠে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।

এটিএম হেমায়েত উদ্দিন ( ১১ অক্টোবর, ২০১৯)

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব, ইসলামী চিন্তাবিদ অধ্যাপক হাফেজ মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন শুক্রবার নিজ বাসায় ইন্তেকাল করেন।

রাজনৈতিক জীবনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের বিভিন্ন পর্যায়ে দায়িত্ব পালন করেন। অবিভক্ত ঢাকা মহানগরের দীর্ঘদিনের সভাপতি ছিলেন তিনি। তিনি সর্বশেষ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশে এর কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়ার যুগ্ম মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করেন।

বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জে বাবা আলহাজ মাওলানা আব্দুল আলীর ঘরে জন্ম গ্রহণ করেন তিনি। বাবার প্রতিষ্ঠানে লেখাপড়ার হাতেখড়ি। তারপর খুলনা শিরোমনি হাফেজিয়া মাদরাসায় পবিত্র কুরআন হেফজ করেন তিনি। পরে ঢাকা আলীয়া ভর্তি হন।  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগে অধ্যয়ন করেন তিনি।

মাওলানা সালাহউদ্দিন লাহোরি  (১৭ অক্টোবর, ২০১৯)

কিশোরগঞ্জের আল-জামিয়াতুল ইমদাদিয়ার প্রবীণ মুহাদ্দিস মাওলানা সালাহ উদ্দীন লাহোরি বৃহস্পতিবার বিকেল তিনটার দিকে ইন্তেকাল করেন।

মাওলানা সালাহ উদ্দিন লাহোরি রহ. দীর্ঘ ৫৫ বছর কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক জামিয়া ইমদাদিয়ায় হাদিসের খেদমত করেছেন। এছাড়াও কিশোরগঞ্জ শহরের বয়লা ইমাম বাড়ি জামে মসজিদের দীর্ঘ দিন খতিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। দেশে-বিদেশের হাজার হাজার মুহাদ্দিস, মুফাসিসর তার ছাত্র।

দীর্ঘদিন ধরে তিনি হার্টের সমস্যায় ভুগছিলেন। ঢাকা হাসপাতালেও ভর্তি হয়েছিলেন। জীবনের শেষদিনগুলো নিজ বাসভবনে চিকিৎসাধীন কাটিয়েছেন।

দারুল উলুম দেওবন্দের শুরা সদস্য মুফতি মানযুর আহমাদ ( ৩ নভেম্বর, ২০১৯)

ভারতের প্রসিদ্ধ আলেম ও দারুল উলুম দেওবন্দের মজলিসে শুরার অন্যতম সদস্য, কানপুর শহরের দীর্ঘদিনের কাজী মুফতি মানযুর আহমাদ মাজাহেরী ইন্তেকাল করেছেন।

মাওলানা সারওয়ার আহমাদ কাসেমী (৪ নভেম্বর)

দারুল উলুম দেওবন্দের উচ্চতর ফারসী ভাষা শিক্ষা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মাওলানা সারওয়ার আহমাদ কাসেমী (৬৫) ইন্তেকাল করেছেন। ৪ নভেম্বর সোমবার বেলা ১২টার দিকে হৃদরোগের আক্রন্ত হয়ে তিনি মাহবুবে এলাহীর দরবারে পাড়ি জমান।

মুফতি গোলাম নবী কাশ্মীরী (৭ নভেম্বর)

দারুল উলুমে (ওয়াকফ) দেওবন্দের সিনিয়র মুহাদ্দিস এবং জামিয়া জিয়াউল উলুম পুঞ্জ এর শাইখুল হাদিস ও বিশিষ্ট লেখক মুফতি গোলাম নবী কাশ্মীরী ইন্তেকাল করেছেন। ৭ নভেম্বর বৃহস্পতিবার দিল্লির ডিওএন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেন।

নানা গুণে গুণান্বিত ছিলেন মুফতী গোলাম নবী কাশ্মীরী রহিমাহুল্লাহ্। লেখনী, বক্তৃতা, দরস-তাদরীসসহ সব বিষয়ে তিনি ছিলেন একজন সফল ব্যক্তি। তার লেখনীর তালিকায় ছিলো অনেকগুলো পাঠকপ্রিয় কিতাব। যার মধ্যে অন্যতম দরসে নেযামীর আরবী সাহিত্যের প্রশিদ্ধ কিতাব দিওয়ান ই মুতানাব্বি এবং তাক্বরীরে দিল পযীর।

আরবী ভাষায় ছিলো তার অসাধারণ দক্ষতা। দারুল উলুম ওয়াকফ দেওবন্দ থেকে প্রকাশিত নেদায়ে দারুল উলুম এবং জামিয়া জিয়াউল উলুম পুঞ্জ থেকে প্রকাশিত মাসিক ‘যিকর ও নযর’রের তিনি ছিলেন আমৃত্যু প্রধান সম্পাদক। চমৎকার বাক্যগঠন, শব্দ নির্বাচন সর্বোপরি আরবী এবং উর্দু ভাষায় ভাষায় তার ছিলো অসাধারণ দক্ষতা। তার লেকচারে মুগ্ধ হয়ে হযরতের ছাত্ররা তাকে উপাধি দিয়েছিলেন “বাহরুল উলুম”(জ্ঞানের সমুদ্র)নামে!

সড়ক দূর্ঘটনায় প্রাণ হারান ওয়ায়েজ মাওলানা জুনাইদ ( ৪ ডিসেম্বর, ২০১৯)

জাতীয় ওয়ায়েজীন পরিষদ বাংলাদেশের রূপগঞ্জ থানা শাখার সহসভাপতি হাফেজ মাওলানা জুনাইদ আহমেদ সিদ্দিকী (২৮) মাইক্রোবাস ও প্রাইভেটকারের মুখোমুখি সংঘর্ষে ইন্তেকাল করেছেন। মাইক্রোবাস ও প্রাইভেটকারের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনি নিহত হন।

তিনি ঢাকার স্বামীবাগ এলাকার সুলতানুল উলুম কওমি মাদরাসার পরিচালক ও নারায়ণগঞ্জ তারাব রূপসী এলাকার রহমানিয়া বাইতুন নূর জামে মসজিদের খতিব।

গুলশান আজাদ মসজিদের সাবেক খতিব মাওলানা শামসুল হক (৫ ডিসেম্বর, ২০১৯)

রাজধানীর উত্তর বাড্ডা ইসলামিয়া কামিল মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ এবং গুলশান আজাদ মসজিদের সাবেক ইমাম ও খতিব মাওলানা শামসুল হক ইন্তেকাল করেন।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় বার্ধক্যজনিত কারণে ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। মাওলানা শামসুল হক ছিলেন গাজীপুরের কাপাসিয়া উত্তর খামের এলাকার মরহুম মাওলানা আব্দুল গফুরের বড় জামাতা।

আল্লামা রফিক আহমদ মহল্লী ( ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯)

পিরোজপুর সাতকাসেমিয়া মাদরাসার শায়খুল হাদিস আল্লামা রফিক আহমদ মহল্লী ইন্তেকাল করেন। ৭ ডিসেম্বর শনিবার রাত ৯টায় নাজিরপুর সদর হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেন। রফিক আহমদ মহল্লী জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সহ-সভাপতি ছিলেন।

কাশফুল বারীর লেখক মুফতি ইদ্রিস কাসেমী ( ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯)

১০ ডিসেম্বর বুধবার দারুল উলূম দেওবন্দের প্রাক্তন মঈনে মুফতি, সহিহ বুখারী শরিফের ব্যাখাগ্রন্থ কাশফুল বারীর লেখক শায়খুল হাদিস আল্লামা মুফতি ইদ্রিস কাসেমী ইন্তেকাল করেন।

ঢাকার ভাটারার জামিয়া সাঈদিয়া কারীমিয়া, মিরপুর ১২, ত- ব্লক মাদরাসা, আফতাব উদ্দীন মাদরাসা, কাসেমুল উলূম রূপনগর মাদরাসা, মিরপুর ত- ব্লক মহিলা মাদরাসা, মুহাম্মাদপুর, বারিধারা, নিজ এলাকা নোয়াখালীসহ দেশের বিভিন্ন মাদরাসায় হাদিসের দরস দিয়েছেন মুফতি ইদ্রিস কাসেমী।

কাশফুল বারী ছাড়াও তার লিখিত আরও কিছু বই হলো – বিশ্ব নবীর (সা:) মি’রাজ, মুকাদ্দামায়ে দাওরায়ে হাদীস ও মিশকাত, মুহাররামের ইতিহাস : মাসায়িল ও ফাযায়িল, নবী প্রেমের সমাপ্তি কিসে? , মাসায়িলে তারাবীহ্ : তারাবীহ্ বিশ রাকআত না আট রাকআত?, কোরআন-হাদীস ও যুক্তির আলোকে দুর্নীতি প্রতিরোধ।

নুরুল ইসলাম বিশ্বনাথী ( ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯)

১৫ ডিসেম্বর শনিবার বৃহত্তর সিলেটের বিশিষ্ট আলেম গহরপুরী র. এর খলিফায় মাওলানা নুরুল ইসলাম বিশ্বনাথী সিলেট মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন।

মাওলানা নুরুল ইসলাম বিশ্বনাথী আতাপুর মাদরাসা, কালিগঞ্জ মহিলা মাদরাসা, বাগিচা বাজার মাদরাসা বিশ্বনাথ এর মোহতামিম ছিলেন। এছাড়াও তিনি খেলাফত মজলিস বিশ্বনাথ উপজেলার সাবেক সভাপতি ছিলেন।

মাওলানা আবদুল খালিক (কিয়ামপুরী হুজুর) ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯

সিলেটের ওসমানী নগর থানাধীন জামেয়া দারুসসুন্নাহ গলমুকাপন মাদরাসার প্রাক্তন নাজিমে তালিমাত (শিক্ষাসচিব) মাওলানা আবদুল খালিক (কিয়ামপুরী হুজুর) ইন্তেকাল করেছেন।

‘ইয়াদগার আকাবির’ খ্যাত মাওলানা মুজাহিদ আল-হুসাইনি  (১৭ ডিসেম্বর, ২০১৯) 

উপমহাদেশের প্রখ্যাত আলেম সাংবাদিক ও সুসাহিত্যক মাওলানা মুজাহিদ আল-হুসাইনি (ফয়সালাবাদ) ১৭ ডিসেম্বর ইন্তেকাল করেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৩ বছর।

বিশিষ্ট এ আলেম সাইয়্যেদ হুসাইন আহমদ মাদানী রহ. মুরিদ এবং শাহ আতাউল্লাহ বুখারি রহ. এর সাথী ছিলেন। মাদানী রহ.-এর দিকে নিসবত করেই তিনি নামের শেষে হুসাইনি লকব লাগাতেন। মাওলানা মুজাহিদ আল-হুসাইনি খতমে নবুওয়ত আন্দোলনেই তার দীর্ঘ জীবন অতিবাহিত করেছেন। তাকে  ‘ইয়াদগার আকাবির’ বলে সম্বোধন করা হতো।

আল্লামা আশরাফ আলী (৩০ ডিসেম্বর, ২০১৯)

আল্লামা আশরাফ আলী ঢাকার গেন্ডারিয়ায় অবস্থিত আসগর আলী হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। ২৯ ডিসেম্বর তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) রাতে ইন্তেকাল করেন।

বিশিষ্ট এ আলেমদীন ও শায়খুল হাদিস দীর্ঘদিন ধরে দীনের বিভিন্ন শাখায় সফল অভিভাবকের ভূমিকা পালন করেছেন।  ২০১৩ সাল থেকে রাজধানীর জামিয়া শারইয়্যাহ মালিবাগ মাদরাসায় হাদিসের দরস দিচ্ছিলেন। প্রিন্সিপাল হিসেবে এই মাদরাসাটিকে সুনামের সাথেই পরিচালনা করে আসছিলেন।

বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়ার সিনিয়র সহ-সভাপতি ও কওমি মাদরাসার সর্বোচ্চ অথরিটি আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সংস্থাটির কো-চেয়ারম্যানেরও দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

আরএম/

ad

পাঠকের মতামত

Comments are closed.