184024

‘যারা রাজনীতি ও দলের স্বার্থকে বড় করে দেখে তারা নির্বোধ’

ভারতের বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রায় ৪০ দিন ধরে দেশব্যাপী বিক্ষোভ চলছে। শাহীনবাগে ও দেওবন্দে চলছে নারীদের অব্যাহত অনশন। দেশটির ক্ষমতাসীন সরকারের বিরুদ্ধে উঠেছে ভিন্নমতকে দমানোর অভিযোগ।

ভারতের বর্তমান পরিস্তিতি নিয়ে স্থানীয় বেসরকারি টিভি চ্যানেল ইটিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব নিয়ে কথা বলেছেন জমিয়তে ওলামায়ে হিন্দের সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা মাহমুদ মাদানি। সাংবাদিক সুহাইল আহমদের নেওয়া সাক্ষাৎকারটি আওয়ার ইসলামের পাঠকদের জন্য অনুবাদ করেছেন নুরুদ্দিন তাসলিম


ইটিভি: বর্তমানে দেশব্যাপী চলমান সরকার বিরোধী বিক্ষোভ ভারতের ইতিহাসে সব থেকে বড় বিক্ষোভ। এই বিক্ষোভ ও বিক্ষোভকারীদের প্রতি সরকারের পাল্টা আক্রোমণাত্মক মনোভাব আপনি কীভাবে দেখছেন?

মাওলানা মাহমুদ মাদানি: জনগণের সাথে বর্তমান সরকারের আচরণের তুলনা শুধুমাত্র ব্রিটিশ সরকারের সাথেই চলে। যে সরকার ধর্ম-বর্ণের ভিত্তিতে জনগণের মাঝে ফাটল তৈরি করতে চায়, তাকে ইংরেজের সরকারের অবৈধ চেতনাধারী ছাড়া আর কিইবা বলতে পারি!

স্পষ্ট করেই বলতে পারি, জনগণের সাথে এ সরকারের আচরণ শত্রু দেশের সরকারের মত। এ সরকার ক্ষমতাসীন হওয়ার কোন যোগ্যতাই রাখে না।

সরকার ও জনগণের মাঝে ভিন্নমত থাকতেই পারে। কিন্তু ভিন্নমত মানেই তা সরকার বিরোধী ভেবে দমন করা ও ভিন্নমতাবলম্বীদের অন্য দেশের নাগরিক সাব্যস্ত করা কোন গ্রহণযোগ্য নীতি হতে পারে না। এবং জনগণবান্ধব সরকার কখনো এমন আচরণ করতে পারে না।

ইটিভি : এই বিক্ষোভ ও আন্দোলনের মাধ্যমে জনগণ অধিকার আদায়ে কতটা সফল হবে বলে মনে করেন আপনি?

মাওলানা মাহমুদ মাদানী: বিক্ষোভের ফলাফল যাই হোক। জীবিত থাকলে আপনাকে লড়াই করতেই হবে। লড়াই না করলে মানুষ আপনাকে মৃত ভেবে পদদলিত করবে। তাই নিজের অধিকার ও সত্য প্রতিষ্ঠায় আপনাকে লড়াই করতেই হবে। অন্যথায় আপনি অস্তিত্বহীন হয়ে যাবেন।

ইটিভি: দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে কোন নেতা ও সংগঠনের অধীনে না থেকে শাহীনবাগের নারীদের আন্দোনলকে কতটা সমর্থন করছেন আপনি?

মাওলানা মাহমুদ মাদানী: নেতা অথবা নেতৃত্ব বিবেচনার পরিস্থিতিতে বর্তমানে নেই আমরা। সেখানে আমাদের মা-বোনেরা সময়ের সাহসী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। বিরাঙ্গনার মত নিজেদের অধিকারের পক্ষে আওয়াজ তুলেছেন। আমরা তাদের সাধুবাদ জানাই। তারা নেতৃত্বশূন্য নয়; অবশ্যই আমরা তাদের সাথে আছি।

ইটিভি: শাহীনবাগের সাহসী নারীদের ব্যাপারে বিজেপি সরকারের অশালীন মন্তব্য ও আন্দোলন ভঙ্গুর করতে জামিয়া মিল্লিয়ার মত এই সমাবেশ লক্ষ করে সরকারি বাহিনীর গুলি ছোড়ার ব্যাপারটা কীভাবে দেখছেন আপনি?

মাওলানা মাহমুদ মাদানী: আমি আগেই বলেছি, এ সরকার জনগণবান্ধব নয় এবং সরকারের এই কার্মকাণ্ড দেশের সার্বভৌমত্বের জন্য হুমকি ডেকে আনবে।

ইটিভি: শেষ প্রশ্ন। দেশ ও সমাজের বর্তমান পরিস্থিতিতে বৃহত্তর মুসলিম জনগোষ্ঠীর একটি দলের মুখপাত্র হিসেবে সরকার ও রাষ্ট্রপতির প্রতি আপনার পরামর্শ কি?

মাওলানা মাহমুদ মাদানী: আমার পরামর্শ হলো- এই বিতর্কিত আইন তুলে নিয়ে সমাজপতিদের সাথে কথা বলে সঠিক সমাধানের চেষ্টা করা হোক। আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে না গিয়ে তাদের অধিকারের ব্যাপারে আশ্বস্ত করা হোক।

ইটিভি: এতে কি বিজেপি সরকার রাজনৈতিকভাবে কিছুটা ব্যর্থ হবে বলে মনে হয় না?

মাওলানা মাহমুদ মাদানী: দেশের সার্বভৌমত্বের তুলনায় রাজনৈতিক সফলতার ব্যর্থতা বড় নয়। যারা রাজনীতি ও দলের স্বার্থকে বড় করে দেখে, দলকে দেশ মনে করে, তারা নির্বোধ। দেশ, দল, মত নির্বিশেষে সবকিছু থেকে বড়।

ইটিভি:  ধন্যবাদ আপনাকে মাহমুদ মাদানী।

আরএম/

ad