186327

মসজিদের জায়গা দখলের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

আওয়ার ইসলাম: চট্টগ্রামের পটিয়া পৌরসদরের আলাই ওখাড়া এলাকার ১৫০ বছরের প্রাচীন হাজী আনোয়ার আলী চৌধুরী জামে মসজিদের জায়গা, পুকুর, ওজু খানা ও ফোরকানিয়া মাদরাসা জোরপূর্বক দখলের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মসজিদের মুতাওয়াল্লি সুলতান আহমদ চৌধুরী।

গতকাল শনিবার দুপুরে একটি অভিজাত রেস্টুরেন্টে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- মসজিদের মুতাওয়াল্লির ছোট ভাই আবু তাহের চৌধুরী, আকতার হোসেন, রিভিউ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার পটিয়ার সভাপতি এম. নাসির উদ্দীন, সিনিয়র সহ-সভাপতি রাশেদ কবির আরমান, হাজী আনোয়ার আলী স্মৃতি সংসদের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সাইফুর রহমান ও সাবেক সেক্রেটারি মোহাম্মদ সেলিম প্রমূখ।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সুলতান আহমদ চৌধুরী জানান ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অধীন ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক সারাদেশে প্রাথমিক পর্যায়ে ১৬২টি মডেল মসজিদ প্রতিষ্ঠা করছে। এ পর্যায়ে পটিয়া মহকুমা মসজিদকে মডেল মসজিদে রূপান্তরের জন্য মন্ত্রণালয় অনুমোদন দেন। কিন্তু মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনকে উপেক্ষা করে মহকুমা মসজিদ বাদ দিয়ে উপজেলা প্রশাসন হাজী আনোয়ার আলী চৌধুরী জামে মসজিদকে মডেল মসজিদ করার জন্য পরিকল্পনা নিয়ে মসজিদের পুকুর ভরাট, ওজু খানা, ফোরকানিয়া মাদরাসাসহ প্রায় ২ একর ১৯ শতক জায়গা দখলে নেয়।

মসজিদের মুতাওয়াল্লিসহ সংশ্লিষ্ট কাউকে না জানিয়ে এ মসজিদ তৈরির জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম শুরু করলে মুতাওয়াল্লির প্রতিবাদ জানিয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য বরাবরে অভিযোগ করেন।

সংসদ সদস্য উক্ত বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য ইউএনওকে নির্দেশ দিলেও ইউএনও কোন ব্যবস্থা নেয়নি। পরিবেশের ছাড়পত্র না নিয়ে পুকুর ভরাটের ফলে শত শত পরিবার যারা গোসল, রান্না-বান্নার কাজে পানি ব্যবহার করেন তারাও ভোগান্তিতে পড়েছে। এতে মারাত্বক পরিবেশ বিপর্যয় দেখা দিয়েছে।

মুতাওয়াল্লি  জানান, এলাকায় একটি মাত্র বিশাল পুকুর ভরাট করার ফলে ওখাড়া গ্রামে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটলে অগ্নি নির্বাপণের জন্য পানিও পাওয়া যাবে না। এছাড়াও মসজিদের প্রতিষ্ঠাতা হাজী আনোয়ার আলী চৌধুরীর নামও মুছে ফেলা হচ্ছে।

উক্ত বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য মুতাওয়াল্লি সুলতান আহমদ চৌধুরী ধর্ম মন্ত্রণালয়সহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

-এএ

ad