রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪ ।। ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ ।। ৮ মহর্‌রম ১৪৪৬

শিরোনাম :
‘কোটাবিরোধী আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রভাবিত করার সুযোগ নেই’ অন্যায় যারা করবে তাদের আমরা ধরবোই: প্রধানমন্ত্রী গাজায় গণহত্যার জন্য ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্র দায়ী: মাহমুদ আব্বাস কুড়িগ্রামে বন্যার্ত ৬০০ পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা দিলো হাফেজ্জী চ্যারিটেবল প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন আজ ডান কানে গুলিবিদ্ধ ট্রাম্প, মারা গেছেন বন্দুকধারী ঘুম ভাঙ্গার পর যে আমল করলে দোয়া কবুল হয় বসনিয়ায় সার্বিয়ান ধ্বংসপ্রাপ্ত সাড়ে চারশো বছর আগের মসজিদ পুনঃরুদ্ধার পুনঃনিরীক্ষণ আবেদনে কৃতী শিক্ষার্থীদের ফি ফেরত দিচ্ছে বেফাক সমাজের বিভিন্ন শ্রেণীকে শিক্ষিত করতে মাদরাসাগুলোর ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ : মাহমুদ মাদানি

কোকাকোলার বিজ্ঞাপন বিকৃত করে প্রশংসায় ভাসছেন ‘খান সাহেব’

নিউজ ডেস্ক
নিউজ ডেস্ক
শেয়ার

|| হাসান আল মাহমুদ ||

কোকাকোলার আসল বিজ্ঞাপনের চেয়ে ডাবিং করা একটি ভিডিও প্রশংসা কুড়িয়ে ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ভিডিওটি ভিউ হয়েছে প্রায় দুই মিলিয়ন। শেয়ার হয়েছে ২৪ হাজারের মত। এছাড়া, ব্যক্তিগত নানা আইডি, পেজ ও ইউটিউবে আপলোডিত হয়েছে হিসাব ছাড়া।  

ডাবিং করা এই ভিডিওটি বানিয়েছেন জনপ্রিয় মিডিয়া ব্যক্তিত্ব বিনোদন বন্ধু মোঃ মহিউদ্দিন হাসান খান (খান সাহেব)।

গত কাল (১০ জুন) ডাবিং করা ভিডিওটি পারসোনাল আইডিতে পোস্ট করে খান সাহেব লিখেন, ‘বিজ্ঞাপনটা একটু ঘুরাই দিছি’। এসময় কমেন্ট বক্সে প্রশংসা ও বাহ্বার সয়লাব বয়ে যায়।  

Mufti Abdullah Firoji লিখেন, ‘অসাধারণ হইছে’। Omar Faruq Masrur নামে একজন লিখেন, ‘মাশাআল্লাহ দারুন হয়েছে ডাবিং টি। Mahdi Hasan Rakib নামে একজন কমেন্টে লিখেন, প্র‘তিবাদের জন্য আমাদের একজন মোঃ মহিউদ্দিন হাসান খান সাহেব আছেন’।

Abu Sufian Ahmed নামে একজন লিখেন, ‘কোকের বিজ্ঞাপনে দেখলাম তারা ই'জ'রা'ই'লের নাম মুখে নিল না। চাচি মামিদের দেখতাম সম্মান করে স্বামীর নাম মুখে নিতো না’। মুফতি মুতাসিম বিল্লাহ আতিকী নামে একজন লিখেন, ‘চমাৎকার হয়েছে। খান সাহেব আমি আপনার ৮০%ভক্ত ছিলাম আজকে ১০০%হয়ে গেলা ‘।

যাকারিয়া যাকী নামে একজন লিখেন, ‘অর্জিনাল বিজ্ঞাপনের ভিউ ৩৬ হাজার। খান সাহেবের ডাবিং ভিও ১ লাখ ৩৯ হাজার। খান ইস পাওয়ার এটাই প্রতিবাদের সেরা ট্রিকস। অন্যায় যেভাবে আসবে সেভাবেই প্রতি*হত করা।

MD Abdullah Al-Mamun নামে একজন লিখেন, ‘আমরা সবাই এই ভিডিও এত প্রচার করব যাতে তাদের বানানো ভিডিও কারো সামনে না পড়ে’। বিশিষ্ট বক্তা ও কলামিস্ট  Jubayer Ahmad লিখেন ‘খান সাহেব, আমার আশা, মূল বিজ্ঞাপনটি যতটা না দর্শকপ্রিয়তা পাবে, তারচেয়ে বেশি পাবে আপনারটি’।

Momshad Al Munaim নামে একজন লিখেন, ‘মোটামুটি ভালোই বয়কট চলছে, তা না হলে সৌদিতে 2.25 লিটার কোক ছিলো ১২ রিয়াল, এখন সেটা 6.95 রিয়াল।’ Shah Abu Toiyab নামে একজন লিখেন, ‘বিজ্ঞাপনটা এভাবেই হওয়ার কথা ছিল। যা খান সাহেব বাস্তয়ান করল। জাযাকাল্লাহ।’

মোঃ মহিউদ্দীন হাসান খান বাংলাদেশের সুস্থ বিনোদনপ্রিয় একজন জনপ্রিয় ব্যক্তি। অসুস্থ বিনোদনের সয়লাবে ভরা দেশে তিনি সুস্থ বিনোদন দিতে পছন্দ করেন। ইসলাম, দেশপ্রেম, মানবতার পক্ষে তার ভিডিওগুলো ভূমিকা রাখে বলে নেটিজনদের বক্তব্য। অশ্লীল, অন্যায়ের প্রতিবাদে সুন্দর, যৌক্তিক জবাব দেন তিনি ভিডিওর ভাষায়।

চলমান এই ডাবিং ভিডিও প্রসঙ্গে কথা হয় ‘খান সাহেব’ নামে খ্যাত এই ‘মোঃ মহিউদ্দিন হাসান খানের সঙ্গে।

তিনি জানান, ‘সাধারণত আমরা যে বিষয়টা বয়কট করি, দেখা যায় ওটা পোস্ট করেই বলি ‘বয়কট’। এতে তো প্রচার হয়ে যায় তাদের। কালকে যখন বিজ্ঞাপনটা কয়েকজনের পোস্ট মারফত আমার সামনে এলো, অনেককেই দেখলাম মূল ভিডিওটাই পোস্ট, শেয়ার করে বয়কটের আওয়াজ তুলছেন। আমি চিন্তা করলাম, বয়কট করার কথা বলে যদি বিজ্ঞাপনটাই আপলোড দেই, তাহলে তো ঘুরেফিরে সেই প্রচারণাই হলো। এইটা মানুষকে সহজ ভুলানো যায় না। তখন আমি এই বিজ্ঞাপন ভিডিওটাই ডাবিং করে আপলোড দেই’।

খান সাহেব কর্তৃক ডাবিং ভিডিং লিংক : https://fb.watch/sDX1KkIUaN/

প্রসঙ্গত, ফিলিস্তিনে ইসরায়েলি হামলার জেরে বিশ্বব্যাপী কোণঠাসা জনপ্রিয় কোমল পানীয় ব্র্যান্ড কোকা-কোলা। ইসরায়েলি সমর্থনের অভিযোগে মুসলিম দেশগুলোর নাগরিকেরা কোকা-কোলা বয়কটের ডাক দেয়। বাংলাদেশেও এর প্রভাব লক্ষণীয়। সম্প্রতি নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করতে একটি বিজ্ঞাপন বানিয়েছে কোকা-কোলা বাংলাদেশ। আর এই বিজ্ঞাপন নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়, অভিনেতাদের দেওয়া হয় বয়কটের হুমকি। অবশেষে আজ মঙ্গলবার (১১ জুন) সকাল থেকে বিজ্ঞাপনটি উধাও ইউটিউব থেকে।

বিজ্ঞাপনটি প্রচারে আসার পরপরই সমালোচনা শুরু হয় নেটদুনিয়ায়। তোপের মুখে পড়েন অভিনেতা শরাফ আহমেদ জীবন, শিমুল শর্মা, আব্দুল্লাহ আল সেন্টু প্রমুখ। পরবর্তীতে অবশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরেছেন অভিনয়শিল্পীরা। তবে এ প্রসঙ্গে এখনও কোনো বিবৃতি দেয়নি কোকাকোলা। কোকাকোলার ওই বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছিল, ১৯৩টি দেশে কোকাকোলা তৈরি হয় এবং ফিলিস্তিনেও এর ফ্যাক্টরি রয়েছে। ইসরায়েলি কোম্পানি নামে যে কথা প্রচলিত রয়েছে তা একেবার অসত্য। এ সমস্ত বক্তব্যই কাল হয়ে দাঁড়ালো কোককোলা বাংলাদেশের।

সাধারণ জনগণ অভিনয়শিল্পীদের বয়কটের হুমকি দেওয়ার পরে শরাফ আহমেদ জীবনও শিমুল শর্মা বিজ্ঞাপনে কাজ করার বিষয়ে মুখ খুলেছেন। শরাফ আহমেদ জীবন বলেন, ‘আমি একজন নির্মাতা এবং অভিনেতা হিসেবে সবার কাছে পরিচিত। বিগত দুই দশক ধরে আমি নির্মাণ ও অভিনয়ের সাথে জড়িত। ব্যক্তিগত জীবনে আমি সবসময় মানবাধিকার বিরোধী যেকোনো আগ্রাসনের বিপক্ষে দাঁড়িয়েছি এবং আপনাদের অনুভূতি ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকেছি।’

শিমুল শর্মা বলেন, ‘আমি মাত্র আমার জীবনের পথচলা শুরু করেছি, আমার এই পথচলায় ভুল ত্রুটি ক্ষমা সুলভ দৃষ্টিতে দেখবেন এবং আমাকে ভবিষ্যতে একজন বিবেকবান শিল্পী হয়ে ওঠার জন্য শুভ কামনায় রাখবেন। ধন্যবাদ সবাইকে।’

এদিকে, চট্রগ্রামের বিশিষ্ট শিল্পপতি জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব সংসদ সদস্য এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীর জ্যেষ্ঠ সন্তান ফারাজ করিম চৌধুরী নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে কোকোলার বিজ্ঞাপন ও বয়কট প্রসঙ্গে লিখেন, ‘ শুধু ইসরাইল কে সমর্থন নয়, সরাসরি ইসরায়েলী সেনাবাহিনীকে অর্থায়ন করে থাকে সেই কোম্পানি। আমাদের কথা পরিষ্কার, যতদিন পর্যন্ত তারা ইসরাইল কে সমর্থন করে যাবে, আমরা তাদের বিরোধিতা করে যাব ‘।

হাআমা/


সম্পর্কিত খবর


সর্বশেষ সংবাদ